,

ThemesBazar.Com

আস্তে ‘ইয়েস স্যার বলায়’ ছাত্রকে পেটালেন শিক্ষক

Spread the love

হাজিরা ডাকার সময় ক্লাসে আস্তে ‘ইয়েস স্যার বলায়’ সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জের ধুবিল আয়শা ফজলার উচ্চ বিদ্যালয়ে সানি আহমেদ নামের ১০ম শ্রেণির এক ছাত্রকে পিটিয়েছেন সহকারী শিক্ষক মাহতাব হোসেন। বুধবার বেলা ১১টায় রায়গঞ্জ উপজেলার আয়শা-ফজলার উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সলঙ্গা থানার ধুবিল কাটার মহল গ্রামের পলান সরকারের ছেলে রুবেল (সানি) বুধবার বেলা ১১টায় আয়শা-ফজলার উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রথম ক্লাসে উপস্থিত হয়।

এ সময় সহকারী শিক্ষক মাহাতাব হোসেন ছাত্রদের নাম ধরে হাজিরা ডাকলে ‘আস্তে ইয়েস স্যার বলায়’ সানিকে তাৎক্ষণিকভাবে বেত্রাঘাত করে।

একপর্যায়ে ছাত্রটি জ্ঞান হারিয়ে ফেললে সহপাঠীরা তাকে উদ্ধার করে স্কুলে সামনে রফিকুল ইসলামের দোকানে নিয়ে মাথায় পানি দেয়। ছাত্রের অবস্থা বেগতিক দেখে শিক্ষক মাহতাব হোসেন এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের হাতে পায়ে ধরে ক্ষমা চান।

এ বিষয়ে আহত ছাত্রের মা ঝর্না খাতুন বলেন, আমার স্বামী বিদেশে থাকেন। আমার আপন কেউ নেই। ছেলেটি সামনে এসএসসি পরীক্ষা দেবে। সহকারী শিক্ষক মাহাতাব হোসেনের বিরুদ্ধে যদি আইনগত ব্যবস্থা নেই তাহলে আমার ছেলেকে পরীক্ষায় ফেল করে দেবে এমন হুমকিতে আমি অভিযোগ দেয়নি।

এ বিষয়ে ধুবিল আয়শা ফজলার উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মাহাতাব জানান, মনের রাগে ছেলেটাকে মারা হয়েছে। এ জন্য আমি ক্ষমা চেয়েছি এবং তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে বিষয়টি মীমাংসা করে নিয়েছি।

Print Friendly, PDF & Email

ThemesBazar.Com

      আরো পড়ুন