,

ThemesBazar.Com

গলাচিপার চর কাজল মা.বি.’র শিক্ষক নোবেল’র কু-কীর্তি ও বর্বরতা

Spread the love

অনির্বাণ নিউজ ডেস্কঃঃ   পটুয়াখালীর গলাচিপার   ঐতিহ্যবাহী চর কাজল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (ইংরেজি) সাব্বির আহমেদ নোবেল স্যার-এর বাসায়, অত্র বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির মেধাবী ছাত্রী তামিমা আক্তারসহ ২৫-৩০ জন শিক্ষার্থী ০৫-০৩-২০১৮ ইং তারিখে প্রাইভেট পড়তে যায়। প্রাইভেট চলাকালীন সময় শিক্ষার্থীরা একে-অপরের সাথে কথা বলায় সাব্বির আহমেদ নোবেল স্যার তাদেরকে লক্ষ্য করে একটি অগ্রভাগ উম্মক্ত কলম ছুঁড়ে মারে। ঘটনাক্রমে কলমটি তামিমা আক্তারের চোখে পরার সাথে সাথে চোখে রক্ত জমাট বাঁধে এবং তিনি জখম হন। তাৎক্ষণিক প্রাথমিক চিকিৎসা করে তাকে বরিশাল নিয়ে যাওয়া হয়। বরিশাল থেকে তামিমা এখন ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয় ।

সর্বশেষে কিছুটা হলেও তামিমার অবস্থা জানা সম্ভব হয়েছে। তামিমা ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। তার চোখের অবস্থা ততটা ভাল নয়, তবে চিকিৎসক আশা করছেন যে, অনেকটা দেরীতে হলেও হয়ত সুস্থ হয়ে উঠতে পারেন তামিমা।

এদিকে কাজল মাধ্যমিক স্কুলের শিক্ষক নোবেল স্যারের বিরুদ্ধে অভিযোগ পত্র জমা দিয়েছেন তামিমার পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু কর্তৃপক্ষ অভিযোগটি গ্রহণ করেছে কিনা সে বিষয়ে জানা যায় নি। পরিচয় গোপন রেখে বিষয়টি নিয়ে প্রধান শিক্ষকের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান। এখন বিষয়টি নিয়ে কর্তৃপক্ষ কি ব্যবস্থা গ্রহন করে সেই দিকেই দৃষ্টি থাকবে এলাকাবাসীর…….কর্তৃপক্ষ কি যাচাই-বাচাই করে সঠিক সিদ্ধান্ত নিবেন নাকি বরাবরের মতই দুর্বলতা প্রতিফলিত হবে…????!!!!

কাল সর্ব-স্তরের মানুষ চর কাজলে এক মানব বন্ধন-এর আয়োজন করা হবে বলে শোনা যাচ্ছে।

এ নিয়ে এলাকায় গুঞ্জন শুরু হলে, প্রাইভেট পড়ুয়া কয়েকজন শিক্ষার্থীর কাছে জিজ্ঞাসা করে এ ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায় এবং আরো জানা যায় যে, বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য পবিত্র কোরআন নিয়ে সকলকে শপথ করানো হয়। বিষয়টি নিয়ে উক্ত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছে টেলিফোন করলে তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি। এলাকার অন্যান্য ব্যক্তি ও বিভিন্ন শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায় যে, নোবেল স্যার পূর্বে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে যৌন-নিপীড়নসহ নানা অসামাজিক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত।     বিষয়ের সূত্র ধরে যখন আরো গভীরে যাওয়া হয় তখন ঠিক যেন বাগধারার সেই চিরচেনা বাক্যের মতই বলতে হয়, এ যেন “কেচোঁ খুরতে কেউটে ”।

 

ছাত্রী আহত হওয়ার বিষয়টি নিয়ে যখন আরো তথ্য যাচাই করা হয় তখন কিছু অপ্রিয় সত্য সামনে চলে আসে……সে তথ্যগুলোর কিছু অংশ আজ প্রকাশ না করে পারছি না,,,,,,,,,

আহত ছাত্রী তামিমার চাচাতো বোনকে বিভিন্ন লোভ দেখিয়ে নোবেল-স্যার কু-প্রস্তাব দেয়। তাতে সে রাজি না হলে তাকে বিভিন্ন ধরণের হুমকিসরূপ কথা বার্তা বলেন। এরূপ চলতে থাকলে এক পর্যায় মেয়েটির বাবা বিষয়টির অবগত হন এবং নোবেল স্যার এর কাছে প্রাইভেট পড়ানো বন্ধ করে দেন। জানা যায় পরবর্তীতে তার পরিবারকেও বিভিন্ন ধরণের কথা বার্তা শুনতে হয়।

এরকম আরো অসংখ্য ছোট খাটো ঘটনা আছে যা সকলের মুখেই শুনা যায়,,,,,,,,,এগুলোকে তার ভুল বলে বিবেচনা করা গেলেও কিছু ঘটনা এমনও আছে যা শুনলে হয়ত আপনি নিজেই ভাবতে বাধ্য হবেন যে, এরাই কি শিক্ষক??? এরাই কি সমাজ তৈরীর কারিগর???? ঠিক এমনই এক ঘটনা ঘটেছে তামান্নার সাথে।

ছোট শিবার একগ্রামের এক সম্ভ্রান্ত পরিবারের মেধাবী মেয়ে তামান্না। নিজের (নোবেল-স্যার) স্ত্রী-সন্তান থাকা সত্ত্বেও তামান্নার সাথে অবৈধ সম্পর্কে লিপ্ত হন নোবেল-স্যার। এরপর বিষয়টি গোপন রাখার জন্যে তামান্নাকে গোপনে বিয়ে করে বরিশালে বাসা করে রাখেন, পরবর্তীতে মেয়েটি অন্তসঃত্ত্বা হলে তার গর্ভপাত করানো হয়। বিষয়টি পরীক্ষা করেন এলাকার এক নামি দামি ডাক্তার। এ নিয়ে এলাকায় বিভিন্ন ধরনের প্রতিবাদ মিছিল সংগঠিত হয়। এ বিষয়ে স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি তার চাকরি বাতিল করার জন্যে রেজুলেশন তৈরী করলেও তার বাবা সভাপতি থাকার কারণে তা সম্ভব হয়নি। বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার জন্যে ৬০,০০০/= টাকার লেনদেন হয়েছে বলেও জানা যায়।

নোবেল স্যার এলাকায় অসংখ্য মেয়েকে এরূপ কু-প্রস্তাব এখনও দিয়ে থাকেন। তবে দুঃখের বিষয় কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নজরে নিয়েও নিচ্ছেন না। বারবারই এ বিষয়টিতে কর্তৃপক্ষের দুর্বলতা প্রকাশ পাচ্ছে।

এলাকার সকল অভিভাবক ও সাধারণ জনগনের একটিই দাবি, যাতে কর্তৃপক্ষ এরূপ রক্ষক বেশে ভক্ষককে যথাযথ শাস্তি প্রদান করে ন্যায়-নিষ্ঠা প্রতিষ্ঠা করেন।

আমার সকল বন্ধুদের উদ্দেশ্যে বলছি, অনুগ্রহ করে আপনারা সত্যিটা জেনে যেকোন বিষয়ে কথা বলবেন এবং সর্বদা সত্যের পথ অনুসরন করবেন। সুত্র Char Kazal Barta

 

 

Print Friendly, PDF & Email

ThemesBazar.Com

      আরো পড়ুন