,

ThemesBazar.Com

প্রাণে প্রাণে দুলছে বৈশাখী হাওয়া

Spread the love

অনির্বাণ নিউজ ডেস্ক::আকাশের ঈশানকোণ কৃষ্ণরূপ নিচ্ছে আরও ক’দিন আগেই। ঝড় হচ্ছে, বৃষ্টি হচ্ছে, শিলা বৃষ্টিও। আর চৈত্রের দাবদাহ গ্রীষ্মকে হাতছানি দিচ্ছে। বসন্তের উদাস হাওয়া ঝড়োরূপ নিয়ে বৈশাখী হাওয়ায় মিলছে। বৈশাখী হাওয়া গায়ে লেগেছে বর্ষবরণ আয়োজকদের মাঝেও।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ ও রমনার বটমূলে ধুম পড়েছে বর্ষবরণের। বিশ্রামের ফুসরত নেই এ পাড়ায়। ব্যস্ত সময় অন্য পাড়াতেও। প্রস্তুতিতেই জানান দিচ্ছে, এই বুঝি এলো রে বৈশাখ।

চৈত্রের বেলা তখন হেলে পড়েছে। রোদের তেজও কম। উদাস বাতাসে দুলছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের গাছের পাতা। দোলা দিচ্ছে শিল্পী মনেও। বৈশাখী দোলা।

বর্ষবরণের অন্যতম আকর্ষণ মঙ্গল শোভাযাত্রা। বর্ষবরণের দিন সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ থেকে এ শোভাযাত্রা বের হওয়ার রেওয়াজ রয়েছে। শোভাযাত্রা বের হয় এখন দেশের অন্যত্র থেকেও।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চারুকলা অনুষদের ২৬তম ব্যাচের শিক্ষার্থী তানভির। বর্ষবরণের ভাস্কর্য বানানোর কাজে মহাব্যস্ত। বলেন, সময় তো নেই। বৃষ্টি খানিক বাগড়া বাধিয়েছে। এ কারণেই সবার মধ্যে ব্যস্ততা। আজকের মধ্যেই তো শেষ করতে হবে। তবে মূল কাজ শেষের দিকে। এখন শেষ বেলার রূপায়ন চলছে।

 

একই ব্যাচের তিশা বলেন, আনন্দের শেষ নেই। একেবারেই বাঙালি সংস্কৃতি উদযাপনের আয়োজনে কাজ করছি। একেবারে আবেগ থেকে…।

রমনার বটমূলেও বর্ষবরণের আয়োজন প্রায় শেষের দিকে। মঞ্চ হয়ে গেছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে গিয়ে দেখা যায়, একজন নির্দেশনা দিচ্ছেন, আরেকজন মানছেন। হাতুড়ি, করাতের শব্দ। রমনার বটমূলে এখন বিশাল কর্মযজ্ঞ। দম ফেলার সময় নেই আয়োজকদের। মঞ্চ সাজানোর কাজ। দিন থাকলেও ওদের এখন ঘণ্টা গুণে সময় পার হচ্ছে। কাজের শতাংশ গণনা হচ্ছে এখন।

রাজধানীর রমনা পার্কের বটতলায় প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ছায়ানটের পক্ষ থেকে বর্ষবরণের আয়োজন করা হয়েছে। বর্ষবরণের গ্রামের আবহ এখন শহরেও। বর্ষবরণের মেজাজে এখন রাজধানী। প্রস্তুতি চলছে সবার মাঝেই।

পান্তা-ইলিশের সঙ্গে বাঙালিয়ানার নানা আয়োজনে মাতবে মানুষ। মেলা, বাউল আয়োজন আর পোশাকেও ফুটবে বৈশাখী রূপ। আর গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী হালখাতার আয়োজন তো আছেই।

Print Friendly, PDF & Email

ThemesBazar.Com

      আরো পড়ুন