ফাউলের শিকার হয়ে তিন ম্যাচ নিষিদ্ধ এমবাপ্পে

সপ্তাহের শুরুতে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয়েছিল এমবাপ্পেকে। ছবি: এএফপি

কাগজে কলমে লেখা থাকবে, প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়কে ধাক্কা দেওয়ায় তিন ম্যাচ নিষিদ্ধ হয়েছেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। কিন্তু নিমসের বিপক্ষে প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ের (পিএসজি) ম্যাচের প্রত্যক্ষদর্শী মাত্রই বলবেন, কড়া ফাউলের শিকার হয়ে প্রতিবাদ করাতেই এ শাস্তি পেয়েছেন পিএসজি ফরোয়ার্ড।

লিগ ওয়ানে নিমসের মাঠে এ সপ্তাহের শুরুতে খেলতে গিয়েছিল। ফ্রেঞ্চ চ্যাম্পিয়নদের আক্রমণের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে উঠতে পারছিল না স্বাগতিক দল। বিশেষ করে এমবাপ্পে পুরো ম্যাচই তত্রস্থ করে রেখেছিলেন নিমসকে। ম্যাচের যোগ করা সময়েই ঘটে অঘটন। ৪-২ গোলে এগিয়ে থাকা অবস্থায় আরেকটি আক্রমণের পরিকল্পনা ছিল এমবাপ্পের। এমন অবস্থায় তাঁকে কড়া ফাউল করেন নিমসের তেজি স্যাভানিয়ের। ভয়ংকর সে ট্যাকলে চোটে পড়ার ভালো সম্ভাবনা ছিল।

স্বভাবতই খেপে যান এমবাপ্পে। স্যাভানিয়েরের দিকে গিয়ে হালকা ধাক্কা দিয়ে কারণ জিজ্ঞেস করেন। যেহেতু মাঠে প্রতিপক্ষের দিকে আক্রমণাত্মক কোনো ভঙ্গি করা যায় না, এ কারণে লাল কার্ড দেখেন এমবাপ্পে। কড়া ট্যাকলের জন্য স্যাভানিয়েরের কপালেও তাই জুটে। এ নিয়ে পরবর্তীতে সমর্থকদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছেন এমবাপ্পে। তবে বলেছেন, ভবিষ্যতেও যদি কেউ এমন কিছু করে তবে তাঁকেও ছাড় দেবেন না। কোচ টমাস টুখেল লাল কার্ডের ব্যাপার মেনে নিলেও, নিজের খেলোয়াড়ের আচরণে কোনো দোষ দেখেননি। কারণ, ক্যারিয়ার শেষ করে দেওয়ার মতো ট্যাকলে যে কোনো খেলোয়াড় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলতে পারে—এমনটাই দাবি টুখেলের।

যেহেতু দুজনই সরাসরি লাল কার্ড দেখেছেন, তাই এ শাস্তি যে শুধু এক ম্যাচে সীমাবদ্ধ হবে না সেটা নিশ্চিত ছিল। ফ্রেঞ্চ লিগের শৃঙ্খলা কমিটি জানিয়েছে, লাল কার্ডের ঘটনায় তিন ম্যাচ নিষেধাজ্ঞা পাচ্ছেন বিশ্বকাপের সেরা তরুণ খেলোয়াড়। ফলে সেন্ট এতিয়েন, রেনে ও রেইমসের বিপক্ষে মাঠে থাকবেন না এমবাপ্পে। তবে ১৮ তারিখ লিভারপুলের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচ খেলতে কোনো বাধা নেই তাঁর।

এমবাপ্পে অবশ্য একটা স্বস্তি পাচ্ছেন। তাঁকে ট্যাকল করা স্যাভানিয়েরও শাস্তি থেকে বাঁচছেন না। অমন ট্যাকল করে এখন পাঁচ ম্যাচ গ্যালারি থেকে খেলা দেখতে হবে এই মিডফিল্ডারকে।

শর্টলিংকঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *