সিঙ্গাপুরে গোপন বৈঠক, ক্ষেপেছেন তারেক!

সিঙ্গাপুরে সরকার বিরোধীদের গোপন বৈঠক নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে তোলপাড় শুরু হয়েছে। ক্ষেপেছেন তারেক রহমান। বর্তমান সরকারেকে পদত্যাগে বাধ্য করার বিষয়ে তারা একমত হতে পারলেও ক্ষমতার অংশীদারীত্ব নিয়ে এখনো একমত হতে পারেননি তারা।

সূত্র জানায়, গত মঙ্গলবার সিংঙ্গাপুরে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে এই গোপন বৈঠক হয়। বৈঠকে অংশগ্রহণকারী সবাই চিকিৎসার নামে সেখানে অবস্থান করছেন। বৈঠকে ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ব্যাবসায়ী নেতা আব্দুল আউয়াল মিন্টু, সাবেক মন্ত্রী মোর্শেদ খান এবং তার পুত্র ফয়সাল মোর্শেদ খান, বিএনপির রহস্য পুরুষ মোসাদ্দেক হোসেন ফালু, সাবেক প্রধান বিচারপতি এস, কে সিনহা এবং আইএসআই প্রধান নাভিদ মোকতার। সেখানে তারেক রহমানের দুইজন প্রতিনিধি থাকলেও সূত্র তাদের নাম জানাতে পারেনি।

বৈঠকে যেকোন মূল্যে শেখ হাসিনা সরকারকে আগামী অক্টোবরের মধ্য ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য করতে প্রস্তাব দেন আইএসআই প্রধান নাভিদ মোকতার। এর মূল দায়িত্ব দেয়া হয় আব্দুল আউয়াল মিন্টু ও মোর্শেদ খানকে ।

বৈঠক থেকে মোসাদ্দেক আলী সরাসরি ফোন করেন তার টিভি চ্যানেলের বিশেষ প্রতিনিধি আরিফুর রহমান এবং দেশ টিভির উপ মহাব্যবস্থাপক আরিফ হাসান কে। তাদেরকে সরকারবিরোধী কর্মকান্ড সমন্বয়ের দায়িত্ব দেয়া হয়। কারণ হিসেবে মোসাদ্দেক আলী ফালু বলেন, এই দুই আরিফের সাথে সরকারের উপর মহলের ভাল সম্পর্ক রয়েছে। ফালু অবিলম্বে তার হেড অব ফাইনান্স সেলিম রওশন ইয়াজদানী এবং এনটিভির হেড অব মার্কেটিং রঞ্জন কুমার দত্তকে সিঙ্গাপুর যেতে বলেন। তাদের আগামি ২৫ সেপ্টেম্বর সিঙ্গাপুর যাবার সম্ভাবনা রয়েছে।

সভায় এস কে সিনহা বলেন, তারেক রহমানকে দিয়ে আওয়ামীলীগ বিরোধী রাজনীতি করাবেন না। বিচক্ষণ, চৌকস কাউকে লাগবে। খালেদা জিয়াও শারিরীকভাবে অসুস্থ। তিনি ড. কামাল হোসেন এবং সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরোদ্দোজা চৌধুরীর নাম প্রস্তাব করেন।

আইএসআই প্রধান নাভিদ মোকতার সহ উপস্থিত সকলেই এই প্রস্তাব সমর্থন করলেও দ্বিমত এবং ক্ষোভ প্রকাশ করেন তারেক রহমানের দুই প্রতিনিধি। তারা প্রকাশ্যই এর জন্য ফালুকে দায়ী করেন। এক পর্যায়ে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে গেলে নাভিদ মোকতার তাদের শান্ত করেন।

সূত্র : বিডিএসনিউজ২৪.কম

শর্টলিংকঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *