প্রত্যক্ষ ভোটে এমপি হতে চান বিএনপির অর্ধশতাধিক নেত্রী

সংরক্ষিত কোটায় নয়, আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সরাসরি ভোটে অংশ নিয়ে জনপ্রতিনিধি হতে চান বিএনপির অর্ধশতাধিক নারীনেত্রী। দলের হাইকমান্ডও এ বিষয়টিকে দেখছে ইতিবাচকভাবে। তাই তৃণমূল পর্যায়ে আরও সক্রিয় হয়ে উঠেছেন দলটির নারীনেত্রীরা। জনসংযোগ, উঠান বৈঠক, কর্মিসভাসহ বিভিন্ন সাংগঠনিক কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে নির্বাচনের জন্য নিজেদের প্রস্তুত করছেন দলটির সাবেক সংসদ সদস্য থেকে শুরু করে সাবেক ছাত্রনেত্রীরা।

নারীনেত্রীরা জানাচ্ছেন, সাধারণ আন্দোলন-সংগ্রাম ছাড়াও দলের যে কোনো দুঃসময়ে তারা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। মামলা-হামলায় জর্জরিত নেতারা আত্মগোপনে চলে গেলে তাদের রাজনৈতিক প্ল্যাটফর্মে আরও সক্রিয় হতে হয়। রাজপথের আন্দোলন-সংগ্রামেও সবার আগে থাকতে হয়। অতীতে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কঠিন সময়েও তাদের অনেকে ঘর-সংসার ফেলে তাকে সঙ্গ দিয়েছেন। তার নির্দেশে বিভিন্ন সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন। বিশেষত ২০১৪ ও ২০১৫ সালে খালেদা জিয়া তার বাসভবন ও কার্যালয়ে অবরুদ্ধ থাকার সময় নারীনেত্রীরা তার পাশে থেকে সবিশেষ ভূমিকা রেখেছেন। সে সময় নারীনেত্রীদের সার্বিক কার্যক্রমের মূল্যায়ন করে তরুণদের পাশাপাশি শিক্ষিত ও মার্জিত নারীনেত্রীদেরও গুরুত্বপূর্ণ পদে নিযুক্তির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এর পরপরই দলের নির্বাহী কমিটিতে দু’জন নেত্রীকে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়। আশান্বিত নারীনেত্রীদের প্রত্যাশা, নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নের ক্ষেত্রেও তাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।

ঢাকার বিভিন্ন আসনে সক্রিয় নারীনেত্রী: নব্বইয়ের সামরিক শাসন ও স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা হিসেবে পরিচিত নারীনেত্রী শিরীন সুলতানা সমকালকে জানান, খালেদা জিয়ার মুক্তি ছাড়া বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না। তার মুক্তির পাশাপাশি সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ ফিরে এলে তিনি ঢাকা-৯ আসন থেকে নির্বাচন করার ব্যাপারে আশাবাদী। একই আসন থেকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের সহধর্মিণী ও মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

ঢাকা-৭ আসন থেকে সরাসরি নির্বাচন করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন প্রয়াত নাসিরউদ্দিন আহমেদ পিন্টুর স্ত্রী নাসিমা আক্তার কল্পনা। নাসিরউদ্দিন আহমেদ পিন্টুর বোন সাবেক কমিশনার ফেরদৌস আহমেদ মিষ্টিও ঢাকা-১৪ আসন থেকে সরাসরি নির্বাচন করতে চান। ঢাকা মহানগর উত্তরের সহসভাপতি মিষ্টি এলাকায় কর্মীবান্ধব নেত্রী হিসেবে এরই মধ্যে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয়েছেন।

দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে সক্রিয় যত নেত্রী: বিএনপিতে নিবেদিত নারীনেত্রীদের মধ্যে দলের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান বর্ষীয়ান রাজনীতিক হিসেবে সারাদেশে সুপরিচিত। বরিশাল-৩ আসন থেকে নির্বাচন করবেন তিনি। নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও তিনি এ আসন থেকে দলের মনোনয়ন পেয়েছিলেন।

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস জাহান শিরিন সরাসরি নির্বাচন করতে চান বরিশাল-৫ থেকে। তৃণমূল বিএনপির আস্থাভাজন এই নেত্রী জানান, জাতীয় নির্বাচনের জন্য বিএনপির দেওয়া দাবিগুলো না মানা পর্যন্ত নির্বাচনে যাবে না তার দল। আর দলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নির্বাচনের প্রস্তুতি নেবেন তিনি।

ঝালকাঠি-২ (সদর-নলছিটি) আসন থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশী সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার আক্তার উদ্দিন আহমেদের মেয়ে জেবা আহমেদ খান। সমকালকে তিনি বলেন, হাইকমান্ডের নির্দেশে মাঠের তৃণমূল নেতাকর্মী-সমর্থকদের নিয়ে কাজ করছেন। মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী তিনি।

বিএনপির আরেক সাংগঠনিক সম্পাদক, বিএনপির প্রয়াত মহাসচিব কেএম ওবায়দুর রহমানের মেয়ে শামা ওবায়েদ নবম সংসদ নির্বাচনে ফরিদপুর-২ আসন থেকে অংশ নেন। এবারও একই আসন থেকে নির্বাচন করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি।

ফরিদপুর-৪ আসন থেকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন জাসাস সহসভাপতি শাহরিয়া ইসলাম শায়লা। রাজপথের এই নেত্রী নির্বাচনী প্রস্তুতি হিসেবে এলাকায় উঠান বৈঠক থেকে শুরু করে সামাজিক কার্যক্রমও শুরু করেছেন। কারাবন্দি খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য এলাকায় দোয়া-মিলাদের আয়োজন করে নেতাকর্মীদের মধ্যে আস্থাও অর্জন করেছেন তিনি। সমকালকে তিনি জানান, নির্বাচিত একজন এমপি হিসেবে এলাকার জন্য কাজ করতে চান তিনি।

মাদারীপুর-২ আসন থেকে আগামীতেও সরাসরি নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন ইডেন কলেজের সাবেক ভিপি হেলেন জেরিন খান। হাইকমান্ড মনোনয়ন দিলে নির্বাচন করবেন বলে জানান তিনি।

শরীয়তপুর-৩ আসন থেকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাহমিনা আওরঙ্গ। স্বামীর মৃত্যুর পর নেতাকর্মীদের চাপে রাজনীতির মাঠে নেমে এলাকায় পুরোদস্তুর নেতৃত্ব দিচ্ছেন এই নেত্রী।

ফেনী-২ আসন থেকে এবার সরাসরি নির্বাচন করতে চান দু’বার সংরক্ষিত আসনে নির্বাচিত এমপি রেহানা আক্তার রানু। সমকালকে তিনি জানান, দলের দুঃসময়ে রাজনৈতিক অগ্নিপরীক্ষায় নারীনেত্রী ও কর্মীরা পুরুষ নেতাকর্মীদের তুলনায় সাফল্য দেখিয়েছেন। দল মনোনয়ন দিলে নির্বাচন করার লক্ষ্যে আগে থেকেই তৎপর রয়েছেন তিনি।

চাঁদপুর-৪ আসনে সরাসরি নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন সংরক্ষিত নারী আসনের সাবেক সংসদ সদস্য রাশেদা বেগম হীরা।

মধ্য-পূর্বাঞ্চলে সক্রিয় যারা :ময়মনসিংহ-৩ (গৌরীপুর) থেকে সরাসরি নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন ছাত্রদলের সাবেক নেত্রী তানজীন চৌধুরী লিলি। বর্তমানে তিনি বিএনপি সমর্থিত নির্বাচিত উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান। কিশোরগঞ্জ-১ আসনে মনোনয়নপ্রত্যাশী সাবেক এমপি হোসনে আরা গিয়াস। মানিকগঞ্জ সদর থেকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন আফরোজা খান রিতা।

জামালপুর-১ আসন থেকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন শাহিদা আক্তার রিতা। ২০০৮ সালের নির্বাচনেও তিনি এ আসন থেকে নির্বাচন করেছিলেন। বর্তমানে দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা মহিলা দলের সভাপতি হিসেবে এলাকায় সক্রিয় রয়েছেন তিনি। স্থানীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে পালন করছেন প্রতিটি দলীয় কর্মসূচি। নির্বাচনের লক্ষ্যেও কাজ করছেন তিনি।

জামালপুর-৫ আসন থেকে সরাসরি নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন সংরক্ষিত আসনের সাবেক সংসদ সদস্য নিলোফার চৌধুরী মনি। সুবক্তা হিসেবে পরিচিত সাবেক এই ছাত্রনেত্রী বলেন, দেশের কোনো ক্ষেত্রেই নারীরা পিছিয়ে নেই। তা হলে কেন সংরক্ষিত আসনে তাদের এমপি হতে হবে? সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে এমপি নির্বাচিত হতে চাই। নির্বাচনের জন্য জনসংযোগ শুরু করেছেন বলেও জানান তিনি।

সিলেট অঞ্চলে সক্রিয় নেত্রী :সিলেট-২ আসন থেকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন নিখোঁজ এম ইলিয়াস আলীর সহধর্মিণী তাহসিনা রুশদীর লুনা। এখনও স্বামীর ফিরে আসার অপেক্ষায় প্রহর গুনছেন তিনি। ইলিয়াসের অবর্তমানে সাংগঠনিক ও সাংসারিক সব ধরনের কাজই অব্যাহত রেখেছেন তিনি। স্বামীর অবর্তমানে দলের ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলের পর থেকে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পদে আসীন এই নেত্রীই দলের মনোনয়ন পাবেন বলে মনে করেন নেতাকর্মীরা।

হবিগঞ্জ-৪ আসন থেকে প্রত্যক্ষ নির্বাচনে আগ্রহী মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান, সংরক্ষিত আসনের সাবেক এমপি ও ঢাবি রোকেয়া হল শাখার ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি শাম্মী আক্তার। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি ছাড়া তিনি নির্বাচনের কথা চিন্তাও করেন না। তবে নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি হলে জনগণের সেবায় সরাসরি নির্বাচিত এমপি হতে চান। কারণ জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত আসনে একজন এমপির কাজ করার ক্ষেত্র খুবই সীমিত।

চট্টগ্রাম অঞ্চলে সক্রিয় যারা: চট্টগ্রাম-২ আসন থেকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন যুদ্ধাপরাধী সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর সহধর্মিণী ফারহাত কাদের চৌধুরী। বিএনপি থেকে তার মনোনয়ন অনেকটাই নিশ্চিত বলে অনেকের ধারণা।

নবম জাতীয় নির্বাচনে সরাসরি আসনে ভোটযুদ্ধে অংশ নিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাহউদ্দিন আহমেদের স্ত্রী হাসিনা আহমেদ। স্বামীর পাশাপাশি তিনিও আগামী নির্বাচনে কক্সবাজারের যে কোনো একটি আসন থেকে নির্বাচন করতে চান।

উত্তরাঞ্চলে সক্রিয় নারীনেত্রী: সাবেক এমপি ও ছাত্রদলের সাবেক নেত্রী অ্যাডভোকেট সৈয়দা আসিফা আশরাফী পাপিয়া। নাটোর-৪ আসন থেকে দলের মনোনয়ন চাইবেন তুখোড় বক্তা হিসেবে পরিচিত এই নেত্রী। পাপিয়া জানান, নারী এমপি নন, তিনি চান জনগণের সরাসরি ভোটে নির্বাচিত হতে। রাজনৈতিক ক্যারিয়ার, দলের জন্য অবদান ও সাংগঠনিক তৎপরতা- সব কিছু মিলিয়ে নিজের যোগ্যতায়ই মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী তিনি।

নীলফামারী-৪ আসন থেকে সরাসরি নির্বাচন করতে চান কণ্ঠশিল্পী বেবি নাজনীন। এ লক্ষ্যে নেতাকর্মীদের নিয়ে এলাকায় আগে থেকেই সক্রিয় রয়েছেন তিনি। কারাবন্দি খালেদা জিয়ার আস্থাভাজন হিসেবে পরিচিত বেবি নাজনীন দলের সব পর্যায়ের নেতাকর্মীদের কাছে সমান গ্রহণযোগ্য।

১৯৮০ সালে বদরুন্নেসা কলেজে ছাত্রদলের প্যানেলে প্রথম নির্বাচিত ভিপি ছিলেন খায়রুন নাহার খানম। পরে কর্মজীবনে উন্নয়ন সহযোগী বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে সম্পৃক্ত হন তিনি। বর্তমানে পাবনা-১ আসন থেকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। জেলা বিএনপির সদস্য এই নেত্রীকে পেয়ে এলাকার নেতাকর্মীরাও উজ্জীবিত বলে জানা গেছে।

এ ছাড়াও নারীনেত্রীদের মধ্যে আরও আলোচনায় আছেন খালেদা রব্বানী, রাবেয়া সিরাজ, ফরিদা ইয়াসমিন প্রমুখ।

শর্টলিংকঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *