ছবিতে দেখুন যৌনপুতুলের পতিতালয়

মানবসমাজে পতিতালয় খুবই পরিচিত একটি শব্দ। দারিদ্র্য আর সামাজিক ও পারিবারিক অত্যাচারের বলি হয়ে একজন মেয়েকে বাধ্য হয়ে বেছে নিতে হয় পতিতাবৃত্তির মতো ঘৃণ্য জীবন। মেয়ে পতিতাকে ঘৃণা করে সবাই কিন্তু পুরুষ পতিতারা (যারা মেয়ে পতিতার কাছে যায়) সমাজে সবার চোখে সম্মানিত ব্যক্তি হিসেবে অধিষ্ঠিত হয়।

তবে আপনি জেনে আশ্চর্য হবেন যে প্রযুক্তির এই যুগে যৌনপুতুলের পতিতালয় রয়েছে। বিশেষ করে বিশ্বের অনেক দেশে রয়েছে যৌনপুতুলের পতিতালয় ।

মদের নেশাটাও বাড়ছিল, মোটের উপর সঙ্গিনীও ছিল আকর্ষণীয়৷ ফলে হাসিঠাট্টা একপর্যায়ে চুমুতে রূপ নেয়, যার চূড়ান্ত পরিণতি ঘটে বিছানায়৷ ম্যাক্স মাঝে মাঝেই এভাবে বিভিন্ন নারীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান৷ আর এটা কোনো সমস্যা হতো না, যদি না তিনি বিবাহিত হতেন৷ ম্যাক্স মনে করেন, তার এই যৌনাকাঙ্ক্ষা স্বাভাবিক ব্যাপার৷ তবে স্ত্রী থাকা সত্ত্বেও এমনটা করা ঠিক নয়৷

যুগল এবং সেক্স থেরাপিস্ট গের্টরুড ভোল্ফ অবশ্য এ ব্যাপারে তার অবস্থান এককথায় জানিয়েছেন৷ তিনি বলেন, মানুষ প্রাকৃতিকভাবেই একগামী নয়৷

আসুন ছবিতে দেখে নেই যৌনপুতুলের পতিতালয় ।

নিভৃত পল্লী

দক্ষিণ ডর্টমুন্ডের এক নিভৃত পল্লীতে এই সেক্স ডল ব্রথেল৷ নাম বরডল৷ গত বছর থেকে চালু হয়েছে জার্মানির প্রথম এই পুতুল পতিতালয়৷

বিশ্বে প্রথম নয়

জাপানেও রয়েছে সেক্স ডলের পতিতালয়৷ বার্লিনে আছে, সেক্স ডল এসকর্ট সার্ভিস৷ পুতুলগুলো সিলিকন দিয়ে তৈরি৷

ঘণ্টায় ৮০ ইউরো

এই পতিতালয়ে ১২টি সিলিকন ডল আছে৷ এর মধ্যে একটি পুরুষ৷ আর একটি পুতুলের স্তন ও পুরুষাঙ্গ দুটিই আছে৷ ঘণ্টায় ৮০ ইউরো খরচ করে এমন একটি ঘরে আগ্রহীরা তাদের যৌনাকাঙ্ক্ষা মেটাতে পারেন৷

এভিলিন শোয়ার্ৎসের বোরডল

বোরডলের প্রতিষ্ঠাতা ৩০ বছর বয়সী এভিলিন শোয়ার্ৎস৷ তিনি এখানে যখন একটি পতিতালয় প্রতিষ্ঠা করতে চেয়েছিলেন তখন জার্মান ভাষাভাষী পতিতা জোগাড় করতে গিয়ে বেশ বেগ পেতে হচ্ছিল৷ পরে জাপানের একটি পতিতালয়ের মডেল দেখে তিনি অনুপ্রাণিত হন৷

চীন থেকে

চীন থেকে এসব পুতুল আনেন এভলিন শোয়ার্ৎস৷ একেকটিতে খরচ পড়ে এক থেকে দুই হাজার ইউরো৷ একেকটা পুতুল ৬ মাস পর্যন্ত সেবা দিতে পারে৷ এভলিনের একজন সহকারী আছেন, যিনি পুতুলগুলো পরিষ্কার করেন, যাতে কোনো রোগ না ছড়ায়৷

সামাজিকভাবে গ্রহণযোগ্য?

প্রতিদিন ৫ থেকে ১২ জন খদ্দের আসেন বরডলে৷ শুধু এসব সিলিকন পুতুলই নয়, বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন রোবটের কথাও ভাবা হচ্ছে যৌনকাজে ব্যবহারের জন্য৷ তবে রোবোটিক্সের সঙ্গে যুক্ত বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এখনো এর সময় আসেনি৷

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।