গা ঘেঁষে দাঁড়াবেন না! খোঁপার কাঁটায় প্রতিবাদের বার্তা

লাইফস্টাইল: একটু সরে দাঁড়ান না, প্লিজ। আমার অসুবিধা হচ্ছে।- ভিড় বাসে হোক বা ট্রেনে। ব্যস্ত সময়ে এ উক্তি কানে আসেনি এমন যাত্রী পাওয়া মুশকিল। কারণ, ভিড়ের চাপে ছোঁয়া-ছুঁয়ি হয়েই যায় পাশে দাঁড়ানো যাত্রীদের মধ্যে। যা নিয়ে বাক-বিতণ্ড অন্ত থাকে না। ঝগড়া গড়ায় বহুদূর। এমনকি শ্লীলতাহানির অভিযোগ হিসাবেও তা কখনও পুলিশের খাতায় স্থান পায়। সেই সম্ভাবনা এড়াতেই এবার বাজারে এসেছে নয়া খোঁপার কাঁটা।

আপাতত সেই খোঁপা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। যৌন হয়রানি থেকে বাঁচতে নতুন খোঁপার দিকে ঝুঁকছেন কলকাতার তরুণীরা।

নারীদের দাবি, ট্রেনে-বাসে অনেক পুরুষই ভিড়ের অজুহাতে তাদের স্পর্শ করার সুযোগ খোঁজেন। বার বার বলা সত্বেও তারা গায়ের পাশ থেকে সরেন না। পাশের যাত্রীকে বলেও লাভ হয় না। নতুন এই ক্লিপ বরং সেই কাজটাই করে দেবে। ‘গা ঘেঁষে দাঁড়াবেন না’- চুলের খোঁপায় জ্বলজ্বল করবে লেখাগুলো। পুরুষ-ছোঁয়া বাঁচাতে এই খোঁপার কাঁটাই এখন হাতিয়ার কলকাতার মেয়েদের। তাদের দাবি, বাসে বা ট্রেনে খোঁপার এই কাঁটাতেই ঘায়েল হবেন পুরুষরা।

আইটি কর্মী তানিয়া মুখোপাধ্যায় বললেন, এই ক্লিপ খোঁপায় দিয়ে বের হলে একদিকে পুরুষদের সাবধানও করা হচ্ছে। আবার নিজের ফ্যাশনও হচ্ছে। এক ঢিলে দুই পাখি মারা যাচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তো ভাইরাল এই ক্লিপ লাগানো খোঁপা। আসলে রাস্তা-ঘাটে বেরিয়ে অনেক সময়ই নানা অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয়। সবাই যে খারাপ উদ্দেশ্য নিয়ে গায়ে পড়েন তেমনটা নয়। বাসের ঝাঁকুনিতে বা বাধ্য হয়েই ধাক্কা লাগতেই পারে। কিন্তু কেউ কেউ খারাপ উদ্দেশ্য নিয়ে গায়ে পড়েন। স্পর্শ করেন। তাদের উদ্দেশে এই বার্তা। তবে এই অভিযোগ মানতে নারাজ পুরুষরা।

তবে বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত সায়ক চট্টোপাধ্যায়ের দাবি, অনেক সময় বাধ্য হয়েই হয়তো ট্রেনে-বাসে পাশে দাঁড়ানো কোনো নারীর গায়ে ছোঁয়া লেগে যায়। কোনো খারাপ উদ্দেশ্য থাকে না সেখানে। কিন্তু কিছু নারী বিষয়টিকে নিয়ে এমন চিৎকার-চেঁচামেচি শুরু করে দেন, যে কোনো পুরুষের পক্ষেই তা অস্বস্তিদায়ক। সূত্র: ওয়েবসাইট

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।