কাশফুল জানান দিচ্ছে শরতের বার্তা

ছয় ঋতুর বাংলাদেশ। প্রতিটি ঋতুর রয়েছে আলাদা রূপ ও বৈচিত্র্য। আর তাই প্রকৃতির ধারাবাহিকতা শরত এসেছে তার অপরূপ নিজস্বতা নিয়ে। সিরাজগঞ্জে নদীর ধারে বাতাসে শুভ্র কাশ ফুলের দোল আর আকাশে সূর্যের সাথে সাদা মেঘের শরত এর আগমনী বার্তা নিয়ে এসেছে। প্রতিদিন দূরদূরান্ত থেকে আসা দর্শনার্থীদের চোখে জুড়ানো এই অপরূপ সৌন্দর্য মন কাড়ছে সবার। তবে বৈশ্বিক উষ্ণতা আর জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবের ফলে ধীরে ধীরে প্রকৃতি হারাচ্ছে তার চিরচায়িত রূপ।

ঝকঝকে নীল আকাশে ভেসে বেড়ানো সাদা মেঘের ভেলা অথবা কখনো কালো মেঘের মাঝ থেকে সূর্যে ঝিলিক আর শ্বেত শুভ্র কাশ ফুলের শোভা সবই জেনো শরত এর আগমনী বার্তা নিয়ে এসেছে। এভাবেই প্রতি বছর ফিরে আসে শরত, বাংলার প্রকৃতিকে করে তোলে রূপময়। সিরাজগঞ্জের পাঁচ উপজেলার যমুনা, করতোয়া, ফুলজোড় নদীর চরাঞ্চলগুলো ঢেকে গেছে কাশফুলে। নীল আকাশে সাদা মেঘের সাথে নদীর ধারে থোকা থোকা শুভ্র কাশফুলের মেলবন্ধন মন কাড়ে প্রকৃতিপ্রেমীদের।

দর্শনার্থীরা বলেন, সবার কবিতায় শরত ফিরে এসেছে। সাদা মেঘের সঙ্গে এই কাশফুলের সাদা রঙ মনকেও সাদা করে দেয়।

প্রকৃতির কাছ থেকে একটু প্রশান্তি পেতে চরাঞ্চলগুলোতে নেমেছে মানুষের ঢল। প্রতিদিন দূরদূরান্ত থেকে পরিবার পরিজন নিয়ে দর্শনার্থীরা আসছে শরতের এই রূপ উপভোগ করতে।

তারা বলেন, শরত আসে সৌন্দর্য নিয়ে আর সেই সৌন্দর্য কাশফুল ছাড়া পূর্ণতা পায় না। এখানকার কাশবনের এই পরিবেশ যে কারও মনকে উদ্বেলিত করে।

শেষ বিকেলের আলো আর মৃদু হাওয়ায় দোল খাওয়া সাদা কাশ ফুল এই দু’য়ের মেলবন্ধনে গোধূলির লাল সূর্য যখন অস্তাচলে তখন প্রকৃতি হয়ে ওঠে আরও মায়াবী।

শর্টলিংকঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *