ইংল্যান্ডে ইতিহাসের ১০ দামি ব্রাজিলিয়ান ফুটবলার

 গোলরক্ষকদের মধ্যে সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকের বিনিময়ে অ্যালিসন বেকারকে দলে ভেড়ায় ইংলিশ ক্লাব লিভারপুল। এই ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষককে কেনার জন্য লিভারপুলকে গুনতে হয়েছে ৫৬.২৫ মিলিয়ন পাউন্ড। এর ফলে ইতালিয়ান গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি বুফনকে ছাড়িয়ে অ্যালিসন বেকারই এখন ক্লাব ফুটবলের ইতিহাসে সবচেয়ে দামি গোলরক্ষক। শুধু তাই নয়, ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে (ইপিএল) খেলা ব্রাজিলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পাওয়া ফুটবলারও এখন অ্যালিসন বেকার। ইপিএলে ব্রাজিলের ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পাওয়া ফুটবলারের নাম ফ্রেড। গত মাসে ৫৩.১০ মিলিয়ন পাউন্ড ট্রান্সফারে ইউক্রেনের ক্লাব শাখতার দনেস্ক থেকে তাকে দলে ভেড়ায় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

 

সদ্য শেষ হওয়া রাশিয়া বিশ্বকাপে ব্রাজিলের স্কোয়াডে ছিলেন তিনি। কিন্তু এক ম্যাচেও মাঠে নামার সুযোগ পাননি ২৫ বছর বয়সী এই তারকা। তবে ২০১৮-১৯ মৌসুমের দলবদলে ফুটবল দুনিয়াকে অনেকটা চমকে দেন ব্রাজিলের আরেক তরুণ প্রতিভাবান ফুটবলার রিচার্লিসন। গত সপ্তাহে ওয়াটফোর্ড থেকে তাকে ৪০.৫০ মিলিয়ন পাউন্ড কিনে নেয় এভারটন। এর ফলে ব্রাজিলের তৃতীয় সর্বোচ্চ বেতন পাওয়া ইপিএল তারকা এখন রিচার্লিসন। একই পরিমাণ পারিশ্রমিকের বিনিময়ে গত বছর ফরাসি ক্লাব মোনাকো থেকে লিভারপুলে যোগ দেন ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার ফাবিনহো। ইপিএল’র এই তালিকায় পঞ্চম স্থানে রয়েছেন রবিনহো। ২০০৮-০৯ মৌসুমে ৩৮.৭০ মিলিয়ন পাউন্ড ট্রান্সফারে রিয়াল মাদ্রিদ থেকে তাকে কিনে নেয় ম্যানচেস্টার সিটি। তবে সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ ও এসি মিলানের এই তারকা ফুটবলার নিজের সেই পারফর্মেন্সের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারেননি। এছাড়া ট্রান্সফার মার্কেট অনুযায়ী প্রিমিয়ার লীগে খেলা ব্রাজিলের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পাওয়া ফুটবলারের তালিকায় ষষ্ট থেকে দশম স্থান পর্যন্ত রয়েছেন যথাক্রমে রবার্তো ফিরমিনো, এডারসন, ফার্নানদিনহো, ফিলিপে অ্যান্ডারসন এবং উইলিয়ানের নাম। ছয় নম্বরে থাকা রবার্তো ফিরমিনোকে ৩৬.৯০ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময়ে জার্মান ক্লাব হফেনহেইম থেকে কিনে নেয় লিভারপুল। অলরেডদের আস্থার প্রতিদান দিতে মোটেও ভুল করেননি এই ব্রাজিলিয়ান। লিভারপুলে মোহাম্মদ সালাহ্‌ আর সাদিও মানের সঙ্গে যে আক্রমণভাগের নেতৃত্ব দিচ্ছেন রবার্তো ফিরমিনোও। এই তালিকায় সাতে রয়েছেন এডারসন। পর্তুগিজ ক্লাব বেনফিকা থেকে গোলরক্ষক এডারসনকে কেনার জন্য ম্যানচেস্টার সিটিকে গুনতে হয়েছিল ৩৬ মিলিয়ন পাউন্ড। অষ্টম স্থানে থাকা ফার্নানদিনহোকে শাখতার দোনেস্ক থেকে এডারসনের সমান ৩৬ মিলিয়ন পাউন্ডের সমান পারিশ্রমিকে কিনে আনে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ম্যানসিটি। বিশ্ব ক্লাব ফুটবলের অন্যতম সেরা এই লীগে ব্রাজিলের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পাওয়া ফুটবলারের তালিকায় নবম আর দশম স্থানে রয়েছেন ওয়েস্টহ্যাম ইউনাইটেডের ফিলিপে অ্যান্ডারসন এবং চেলসির উইলিয়ান। ৩৪.২০ মিলিয়ন পাউন্ডে অ্যান্ডারসনকে ইতালিয়ান ক্লাব লাজিও থেকে কিনে এনেছিল ওয়েস্টহাম। অন্যদিকে ২০১৩তে রাশিয়ান ক্লাব অ্যাঞ্জি মাখাচখালা থেকে ৩১.৯৫ মিলিয়ন পাউন্ডে চেলসিতে যোগ দেন উইলিয়ান। তবে চেলসির এই ব্রাজিলিয়ান তারকাকে কেনার জন্যই এখন মরিয়া ইউরোপের শীর্ষ সারির ক্লাবগুলো। তাকে দ্বিগুণ পারিশ্রমিকের বিনিময়ে কেনার জন্য তিন দফা চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয় স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনা।

শর্টলিংকঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *